ভিন্ন খবর

বঙ্গবন্ধুর প্রথম মন্ত্রীত্ব

১৯৫৪ সাল। নির্বাচনে যুক্তফ্রন্টের জয়। পূর্ব পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হলেন শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক। তড়িঘড়ি করে মন্ত্রীসভা করলেন তিনি। ঠাই হলো না আওয়ামী লীগের কারও। বঙ্গবন্ধু তখন টাঙ্গাইলে, মওলানা ভাসানীর সঙ্গে একটি কর্মিসভায় যোগ দিয়েছেন। তিনি ভাষণ দেওয়া অবস্থায় টেলিগ্রাম পেলেন, প্রধানমন্ত্রী তাকে ঢাকায় যাওয়ার অনুরোধ করেছেন। বঙ্গবন্ধু ঢাকায় আসার পর শেরেবাংলা তাকে বললেন, ‘তোকে মন্ত্রী হতে হবে। আমি তোকে ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম বিদেশ সফর

১৯৫২ সাল। চীনের পিকিংয়ে অনুষ্ঠেয় এশিয়া অ্যান্ড প্যাসিফিক রিম পিস কনফারেন্সে যোগ দিতে গেলেন বঙ্গবন্ধু। এটিই তার প্রথম বিদেশ সফর। আকাশপথে তিনি প্রথমে যান রেঙ্গুন। বার্মা (বর্তমানে মিয়ানমান) বা ব্রহ্মদেশ তখন স্বাধীন। সেই হিসাবে বার্মাই বঙ্গবন্ধুর প্রথম বিদেশ। রেঙ্গুনের একটি বিশ্রামাগারে থাকার ব্যবস্থা  হলো। ওখানে ঘুরে ঘুরে বেশ কয়েকটি প্যাগোডা দেখলেন। পরদিন ভোরে রওনা দিয়ে পৌঁছলেন থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে। সেখানে ...

বিস্তারিত »

প্রথমবার সংসদে বঙ্গবন্ধু

১৯৫৪ সাল। পূর্ব পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে গোপালগঞ্জের প্রার্থী বঙ্গবন্ধু। পূর্ব বাংলাজুড়ে নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকায় নিজের নমিনেশন পেপার জমা দিতে এলাকায় আসার সুযোগ পাচ্ছিলেন না তিনি। এলেন শেষদিন। ততদিনে  মুসলিম লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী বিত্তশালী ওয়াহিদুজ্জামান প্রচুর অর্থ খরচ করে প্রচারণার কাজ এগিয়ে ফেলেছেন। অবশ্য বঙ্গবন্ধু এলাকায় আসতেই পরিস্থিতি পাল্টে গেল। সবাই তাকে ভীষণ ভালোবাসত। তার প্রচারণার সম্বল ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম রাজনৈতিক সক্রিয়তা

১৯৩৮ সাল। বাংলার প্রধানমন্ত্রী শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক ও শ্রমমন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী আসবেন গোপালগঞ্জে। করা হয়েছে বিশাল জনসভার আয়োজন। এ নিয়ে মুসলমানদের মধ্যে বিপুল আলোড়ন। স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর ভার মিশন স্কুলের ছাত্র শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর। সভা শেষে মিশন স্কুল দেখতে গেলেন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। বঙ্গবন্ধুসহ অন্যরা তাকে সংবর্ধনা দিলেন। এরপর সোহরাওয়ার্দী যখন হেঁটে লঞ্চের দিকে চলছিলেন, বঙ্গবন্ধুও ছিলেন ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম দায়িত্বভার

  ১৯৩৭ সাল। আবদুল হামিদ ছিলেন বঙ্গবন্ধুর গৃহশিক্ষক। অসহায় ও দরিদ্র মুসলমান ছেলে-মেয়েদের জন্য একটি সমিতি গড়ে তুলেছেন তিনি। ‘মুসলিম সেবা সমিতি’। ওই সমিতির সদস্য হিসেবে বঙ্গবন্ধু ও সমবয়সী অন্য ছেলে-মেয়েরা প্রতি রোববার বেরিয়ে পড়তেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাল সংগ্রহ করতে। ওই চাল বিক্রির টাকা দিয়ে কেনা হতো গরিব ছেলে-মেয়েদের বই-খাতা; মেটানো হতো তাদের পরীক্ষার ফি ও পড়াশোনা বাবদ নানা খরচ। ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম ভাষণ

ছোটবেলা থেকেই জনসেবামূলক নানা কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। তাই কোনটি তার প্রথম ভাষণ- সুনির্দিষ্ট করে বলা কঠিন। কোনো বইয়েও এ নিয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই। আত্মজীবনীতে তিনি রাজনীতি করার কারণে ভাষণ দেওয়ার কথা উল্লেখ করেছেন। সেটি সম্ভবত ১৯৪৩ বা তার পরের কোনো এক সময়ের কথা। নিজের ইউনিয়নে নির্বাচনের সময় মুসলিম লীগের একটা সভা হয়েছিল। সেখানে তিনি বক্তব্য রেখেছিলেন। কেন শেরেবাংলা এ ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম জেল

১৯৩৮ সাল। মার্চ কিংবা এপ্রিল মাস। সন্ধ্যায় ফুটবল খেলে বাড়ি ফিরেছেন তিনি। এমন সময় গোপালগঞ্জের খন্দকার শামসুল হুদা এসে জানালেন, বঙ্গবন্ধুর সহপাঠী আবদুল মালেককে হিন্দু মহাসভার সভাপতি সুরেন ব্যানার্জির বাড়িতে ধরে নিয়ে গিয়ে মারধর করা হচ্ছে। খবর পেয়ে বঙ্গবন্ধু এক মুহূর্ত দেরি করলেন না। এক ছাত্রকে সঙ্গে নিয়ে ছুটে গেলেন সুরেন ব্যানার্জির বাড়ি। সেখানে গিয়ে মালেককে ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করলেন। ছেড়ে ...

বিস্তারিত »

বঙ্গবন্ধুর প্রথম পাঠশালা

১৯২৭ সাল। বঙ্গবন্ধুর বয়স সাত বছর। টুঙ্গিপাড়ার গিমাডাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হলেন তিনি। এই মিডল ইংলিশ স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা তারই ছোট দাদা খান সাহেব আবদুর রশিদ। তখনকার দিনে ওই এলাকায় এটিই ছিল একমাত্র ইংলিশ স্কুল। এখানে চতুর্থ শ্রেণির কিছুদিন পর্যন্ত তিনি পড়েছেন। তারপর বাবার সঙ্গে তার কর্মস্থল গোপালগঞ্জে চলে যান। ভর্তি হন গোপালগঞ্জ পাবলিক স্কুলে। ১৯৩৪ সাল। তিনি তখন সপ্তম শ্রেণির ...

বিস্তারিত »

ফেরিওয়ালা কাশেমের যাযাবর জীবন

॥ সৌরভ দে ॥ “ফেরিওয়ালার জীবনডা ভালা না খারাপ তা কইতে পারমু না তবে মাঝে মইদ্ধ্যে পরিবারের লাইগা মন কান্দে। বাসায় দুইডা বাইচ্চা আছে আমার, ওদের লাইগাই বেশি খারাপ লাগে” ফেরিওয়ালা জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে বলছিল কাশেম। পুরো নাম জিজ্ঞেস করলে বলল মোঃ কাশেম, বয়স ৩০ এর কাছাকাছি তবে সঠিক হিসেব নেই। কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবের মানুষ সে। গত ৮ বছর ধরে ...

বিস্তারিত »

আজ কর্ণেল শাফায়াত জামিল বীর বিক্রম’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী

॥ ইকবাল হোসেন ॥ আজ ১১ই আগস্ট ২০১৯ইং কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) শাফায়াত জামিল বীর বিক্রম’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি ১৯৪০ সাল’র ১ মার্চ কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার খড়গমারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা এ এইচ এম করিমউল্লাহ এবং মা লায়লা জোহরা বেগম। কর্নেল শাফায়াত জামিল’র পিতা এ এইচ এম করিমুল্লাহ ইস্ট পাকিস্তান সিভিল সার্ভিস’র (জুডিশিয়াল) অফিসার ছিলেন। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর শাফায়াত ...

বিস্তারিত »